সারাদেশ

ট্রাকচালকে মারধরের ঘটনায় পুলিশ কর্মকর্তা সাময়িক বহিষ্কার

বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব গোলচত্বর এলাকায় পুলিশকে চাঁদা না দেয়ায় বগুড়াগামী একটি ট্রাকের চালককে মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

এর আগে সকালে ৬টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব থানার এসআই নুর আলম ট্রাক চালক বকুলকে মারধর করলে পরিবহন শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করে। শনিবার সকাল ৬টা থেকে ১০টা পর্যন্ত সেতু দিয়ে সকল ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। এতে করে সেতু দুই পাড়ে মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশ্বাসে এবং অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাকে সাময়িক বহিষ্কারের পর মহাসড়কে যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

আন্দোলনকারী চালকদের অভিযোগ, ট্রাক তল্লাশির নামে বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব থানার এসআই নুর আলম চাঁদা দাবি করেন। এ সময় তাকে চাঁদা না দেয়ায় চালককে বেধরক মারপিট করা হয়। এতে ওই চালকের চোখ মারাত্মকভাবে জখম হয়। এ সময় তারা দোষী পুলিশ কর্মকর্তার শাস্তি দাবি করেন।

পরে এ নিয়ে পুলিশ ও ট্রাক শ্রমিক নেতারা বৈঠকে বসে। বৈঠকে অভিযুক্ত এসআইকে সাময়িক বহিষ্কার এবং আহত চালকের সকল চিকিৎসা ব্যয় পুলিশ বহন করবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পরে শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নিলে যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন জানান, সকালের দিকে বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব গোলচত্বরে পুলিশ তল্লাশি করছিল। এ সময় ট্রাকের চালকের সঙ্গে তর্কাতর্কি হয়। এরপরেই অন্যান্য চালকরা সড়ক অবরোধ করে রাখে।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরিফুল আলম সাংবাদিকদের জানান, এ ঘটনায় বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুর আলমকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। তদন্তপূর্বক তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।