সারাদেশ

ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রিতে ১০ দেশের শ্রদ্ধা নিবেদন

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিহত সৈনিকদের স্মরণে কুমিল্লার সেনানিবাস সংলগ্ন ময়নামতি কমনওয়েলথ যুদ্ধ সমাধিতে (ওয়ার সিমেট্রি) শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ১০টি দেশের হাইকমিশনার ও প্রতিনিধিগণ। শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার কানভের এর নেতৃত্বে এসব দেশের প্রতিনিধিরা এ স্মরণ সভায় অংশগ্রহণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জার্মানের হাইকমিশনার পিটার তাহরু হলতি, ফান্সের হাইকমিশনার মেরি এনিক বাউরদিন, জাপানের হাইকমিশনার হিরুইয়াসু ইজুমি, অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার জুলিয়া নিবলেট, কানাডার হাইকমিশনার বেনয়িট প্রিফনটেইন, শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনার ক্রিশান্তি ডি সিলভা, আমেরিকান দূতাবাসের প্রতিনিধি জুয়েল রিফম্যান, ভারতীয় দূতাবাসের প্রতিনিধি ব্রিগেডিয়ার জে.এস চিমা প্রমুখ।

শ্রদ্ধা নিবেদনের শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত এবং পবিত্র বাইবেল পাঠের পর ফাদার আলবারু প্রার্থনা অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন। ব্রিটিশ সামরিক উপদেষ্টা ডমিনিক স্পেনসারের স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। প্রার্থনা পর্ব শেষে সমাধিক্ষেত্রের হলিক্রসে বাংলাদেশের পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন কুমিল্লা সেনানিবাসের জিওসি ও ৩৩ পদাতিক ডিভিশনের কমান্ডিং অফিসার মেজর জেনারেল তাবরেজ আহমেদ শামস চৌধুরী এনডিসি- পিএসসি, কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের পক্ষে জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর ও জেলা পুলিশের পক্ষে শ্রদ্ধা জানান জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম-বিপিএম (বার) পিপিএম। এর আগে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। পরে হাইকমিশনার ও প্রতিনিধিগণ ময়নামতির যুদ্ধ সমাধির হলিক্রস পাদদেশে ফুলেল শ্রদ্ধাঞ্জলির মধ্য দিয়ে নিহত সৈনিকদের স্মরণ করেন। এ সময় বিউগলে করুণ সুর বেজে ওঠে। ওই প্রার্থনা ও স্মরণ অনুষ্ঠান শেষে কমনওয়েলথভুক্ত দেশের প্রতিনিধিগণ সমাধিস্থল পরিদর্শন এবং দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করেন।

উল্লে­খ্য, কুমিল্লার ময়নামতি সেনানিবাসের উত্তর প্রান্তে বুড়িচং উপজেলার কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের পশ্চিম পাশে ছায়াঘেরা এক নৈসর্গিক শান্ত পরিবেশে অবস্থিত ‘ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রিতে ১৯৪১ সাল থেকে ১৯৪৫ সাল পর্যন্ত দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিহত ৭৩৮ জন সেনাকে সমাহিত করা হয়।