জাতীয়

হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দিলে আইনি ব্যবস্থা

দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় প্রার্থীরা হলফনামায় সম্পদের মিথ্যা ও ভুল তথ্য দিলে তা খতিয়ে দেখবে দুদক। এ ছাড়া নির্বাচন কমিশনে প্রার্থী ও পরিবারের সদস্যদের জমা দেওয়া সম্পদ বিবরণীর তথ্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) থাকা তথ্যের সঙ্গেও মিলিয়ে দেখা হবে। তবে এসব প্রক্রিয়া নির্বাচনের পর হবে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে দুদক কার্যালয় থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা জানান।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, মনোনয়ন পত্রের সঙ্গে প্রার্থীরা হলফনামা জমা দেবেন। নির্বাচন কমিশন যখন সেগুলো ওয়েবসাইটে প্রকাশ করবে, তখন সেটা পাবলিক ডকুমেন্ট। আমরা পর্যবক্ষেণ করব। আরো যেসব প্রতিষ্ঠানে সম্পদের হিসাব দিতে হয়, যেমন এনবিআর- সেসব তথ্য আমরা মেলাবো।

তিনি বলেন, অসত্য তথ্য যদি কোনো প্রার্থী দেন, আমরা যাচাই-বাছাই করে আইনি ব্যবস্থা নেব। একইসঙ্গে কমিশনকেও অবহিত করব। তথ্য দেওয়ার ক্ষেত্রে যদি ভুল হয়, তাহলে কনসিডার করা হবে।

তিনি আরো বলেন, দেশ এখন উন্নয়নের ধারায় আছে। এখন আর মানুষ দুর্নীতিবাজদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না। আশা করি, মানুষ দুর্নীতিবাজদের ভোট দেবে না।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, এ কথা স্বীকার করতেই হবে, দেশে দুর্নীতি আছে সত্য। তবে দেশের অনেক উন্নতি হয়েছে। মানুষ এখন দুর্নীতিমুক্ত দেশ চায়। এ লক্ষ্যেই দুদক কাজ করছে বলেও জানান তিনি।