ক্রীড়াঙ্গন

সেরা ক্রিকেটটাই খেলতে হবে: মিঠুন

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় ফিরবে আজ সকালে। একজন ছাড়া বাংলাদেশ দলের সব ক্রিকেটারই ঢাকায় ফিরেছেন। গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামে অনুশীলনেও দেখা মিললো কয়েকজনের। সকালে মিরপুরে দুই ঘণ্টা ব্যাটিং করেছেন মুশফিকুর রহিম। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তাইজুল ইসলাম, মোহাম্মদ মিঠুন, মুমিনুল হক, সাকিব আল হাসানরাও অনুশীলনে নেমে পড়েন।

চট্টগ্রাম টেস্টে তৃতীয় দিনেই ৬৪ রানের জয়ের পর এখন সিরিজ নিশ্চিত করার দিকেই চোখ বাংলাদেশের। আগামী শুক্রবার শুরু হবে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট। বিসিবি একাডেমিতে রানিং শেষে জাতীয় দলের ক্রিকেটার মোহাম্মদ মিঠুন বলেছেন, সিরিজ জিততে সেরা ক্রিকেটটাই খেলতে হবে বাংলাদেশকে। মিরপুরে দল হিসেবে ঘুরে দাঁড়াতে মুখিয়ে থাকবে ক্যারিবিয়ানরা।

দ্বিতীয় টেস্টে চট্টগ্রামের চেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে কিনা জানতে চাইলে মিঠুন গতকাল বলেছেন, ‘দল হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভালো, এতে কোনো প্রশ্ন নাই। ওদের সাথে ভালো করতে হবে আমাদের সেরা ক্রিকেটটাই খেলতে হবে। এমন না যে খারাপ খেলেও ওদের সাথে জিতে যাবো। দল যেটাই হোক, আন্তর্জাতিক সব দলই শক্ত। সেখানে রেজাল্ট করতে হলে অবশ্যই আমাদের সেরা ক্রিকেটটা খেলতে হবে।’

চট্টগ্রামে ইমরুল কায়েসের শরীরে আঘাত করে দুই ডিমেরিট পয়েন্ট পেয়েছেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। আগের তিন ডিমেরিট পয়েন্ট থাকায় এক টেস্টের জন্য নিষিদ্ধ হয়ে গেছেন ক্যারিবিয়ান এই পেসার। মিরপুরে খেলা হবে না তার। গতির ঝড়ে চট্টগ্রামে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষায় ফেলেছিলেন গ্যাব্রিয়েল। দ্বিতীয় টেস্টে তার না থাকাটা স্বাগতিকদের জন্য স্বস্তির কারণই বটে।

গ্যাব্রিয়েলের না খেলার বিষয়ে মিঠুন বলেছেন, ‘গ্যাব্রিয়েল ফ্ল্যাট উইকেটের মধ্যেও অনেক ভালো বোলিং করেছে। ও গুরুত্বপূর্ণ উইকেটগুলো নিয়েছে। অবশ্যই আমাদের একটা সুবিধা থাকবে। কিমার রোচ যেমন নতুন বলে কার্যকর। কিন্তু পুরাতন বলে গ্যাব্রিয়েলের মত এতটা কার্যকর না।’

চট্টগ্রামের স্পিনিং ট্র্যাকে ম্যাচের স্থায়ীত্ব ছিল তিন দিন। মিরপুরের উইকেট স্বভাবতই অননুমেয়। এখানেও ম্যাচ তিন দিনে শেষ হয়ে যাবে কিনা প্রশ্নে মিঠুন বলেন, ‘ওই ধরনের কোনো কিছু চিন্তায় নাই। অবশ্যই পাঁচ দিনের ম্যাচ টার্গেট থাকবে পাঁচ দিনই খেলার। এরপরও কন্ডিশনের কারণে তেমন কিছু হলে সেটা পরের বিষয়।’

দুই টেস্টের ক্যারিয়ারে ১০৪ রান করেছেন মিঠুন। সর্বোচ্চ ৬৭ জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে। মিডল অর্ডার এই ব্যাটসম্যান জানিয়েছেন, ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পার্থক্য অনেক। ঘরোয়া ক্রিকেটে ফ্ল্যাট উইকেটে বাজে বল আসে বেশি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে উইকেট ভালো, কন্ডিশনও কঠিন থাকে।

টেস্টে চার নম্বরে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পাচ্ছেন মিঠুন। নিজের ব্যাটিং পজিশন নিয়ে সন্তুষ্ট তিনি। ২৭ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান গতকাল বলেছেন, ‘খুব ভালো একটা জায়গায় আমার সুযোগ হচ্ছে। এটা অবশ্যই আমার জন্য বড় পাওয়া, যে আমি একটা ভালো জায়গায় ব্যাটিং করছি। দেখেন জায়গাটা পাকা করতে হলে অবশ্যই পারফরম্যান্স দিয়ে পাকা করতে হবে। আমি চেষ্টা করছি প্রতিদিন উন্নতি করার। নিজের সেরা চেষ্টা করার। তারপরও সব ইনিংসে তো সফল হওয়া সম্ভব না। অনেক সময় কন্ডিশনের জন্য, অনেক সময় নিজে ভুল করি। এর মধ্যে থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। আমি আমার সেরা চেষ্টাটা করে যাবো।’