ক্রীড়াঙ্গন

‘তামিমের জন্য একটা তাড়না ছিল’

শ্রীলংকার বিপক্ষে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেছেন মুশফিকুর রহিম। এশিয়া কাপে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের ইনিংস বেরিয়েছে তার ব্যাট থেকে। ভেঙেছেন এশিয়া কাপে নিজের আগের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলে হয়েছেন ম্যাচ সেরা। আর সেখানে তামিমকে নিয়ে কথা বলবেন না তা কি হয়। মুশফিকও বললেন তামিমের কথা। বললেন মাশরাফিও।

ম্যাচ সেরার পুরস্কার নিতে এসে বাংলাদেশের ডানহাতি ব্যাটসম্যান মুশফিক বলেন, ‘পরের রাউন্ডে (সুপার ফোর) যাওয়ার জন্য আমাদের গ্রুপের দুই ম্যাচেই জয় দরকার ছিল। মিঠুন আমার সঙ্গে দারুণ এক ইনিংস খেলেছে। আমি জানতাম থিতু হতে পারলে বড় ইনিংস খেলা সম্ভব হবে।’ মুশফিক থিতু হয়েও অন্যদের সমর্থন না পাওয়ায় সেঞ্চুরি করতেই তার উস-টিস করতে হয়েছে। সেখানে থেমেছেন ১৪৪ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে। দারুণ ওই ইনিংস খেলার জন্য তামিমের মানসিকতার ভূমিকা দেখছেন তিনি।

মুশফিক বলেন, ‘তামিমকে যখন ব্যাট হাতে ড্রেসিং রুম থেকে বেরুতে দেখলাম, তখনই ওর জন্য হলেও ভালো খেলার তাড়না অনুভব করি। মনে হয়েছিল তামিমের জন্য ভালো খেলা দরকার। আমার দেশের জন্য ভালো করা দরকার। প্রত্যেকটা বলে মনোযোগ ধরে রাখা সহজ ছিল না। কিন্তু আমি বড় রান করতে সংকল্পবদ্ধ ছিলাম। আমি খুব খুশি যে দলের জন্য অবদান রাখতে পেরেছি।’

ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়কও বিশেষ কৃতিত্ব দিলেন মিঠুন এবং মুশফিককে। তবে দলের প্রকৃত চাপের মুখে তামিম ব্যাট হাতে নিয়ে বড় অবদান রেখেছেন সেটাও মনে করিয়ে দিলেন তিনি। তামিম একবার দুঃখ করে বলেছিলেন, বাংলাদেশ ক্রিকেটে তার ভক্ত নেই, হেটারস আছে। কিন্তু তামিম দলের জন্য যেটা করে দেখালেন তা মনে-চোখে বাঁধিয়ে রাখার মতো।

মাশরাফি বলেন, ‘তামিম দলের প্রকৃত চাপের মুখে ব্যাট হাতে নিয়েছে। মুশফিককে শেষে রান করতে দেখা দারুণ ব্যাপার ছিল। তবে সকলের অবশ্যই তামিমের নাম মনে রাখা উচিত। আমাদের সিনিয়ররা ভালো পারফরমেন্স করছে, এখন তরুণদের সামনে আসার পালা। আমাদের এখনো অনেক জায়গায় উন্নতি করার আছে। পুরো ম্যাচ জুড়ে অগণিত দর্শক আমাদের সমর্থন দেওয়ায় তাদের ধন্যবাদ। আমাদের শেষে ব্যাট করতে হয়নি। এতে অবশ্যই দলের জন্য ভালো হয়েছে। তবে আমরা তার জন্যও প্রস্তুত ছিলাম।’