ক্রীড়াঙ্গন

‘আজীবন তামিমকে মনে রাখবে ক্রিকেট বিশ্ব’

বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম তারকা ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল। দলের প্রয়োজনে রঙিন জার্সিতে তিনি যতটা বিধ্বংসী, সাদা পেশাকে আবার ততটাই ধৈয্যশীল এই বাঁ-হাতি ওপেনার। আর সেই ধারাবাহিকতায় এবার এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনি নিজেকে নিয়ে গেলেন অনন্য এক উচ্চতায়। কেবল দলের প্রয়োজনে আর স্বদেশ প্রেমের তাগিদেই একহাতে আগুনের গোলা মোকাবেলা করতে নেমেছিলেন এই ড্যাসিং ব্যাটসম্যান। যা অবাক করেছে পুরো ক্রিকেট বিশ্বকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুরু হয়েছে তামিমকে নিয়ে আলোচনা-বন্দনা।

গতকাল দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামার পরই ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ দৃশ্য দেখতে হয় বাংলাদেশকে। চোটের কারণে ‘রিটায়ার্ড হার্ট’ হয়ে মাঠ ছাড়েন তামিম। দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে তিনি যখন ফিরছিলেন, তখন ব্যাটিং ইনিংসে মাত্র ৩ রানে ২ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল বাংলাদেশ। পরে জানা গেল তার এশিয়া কাপই শেষ।

কিন্তু তখনও করো ধারণা ছিল না সামনে কত বড় চমক আসতে যাচ্ছে। মুস্তাফিজুর রহমান রানআউট হয়ে ফিরে গেলে দলের প্রয়োজন ও দেশপ্রেমের জন্য ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে আবারও মাঠে নামেন টাইগার এই ওপেনার। এক হাতেই চালিয়ে যান ব্যাট, প্রতিহত করেন লঙ্কান আগুনের গোলা।

এদিকে, প্রিয় মুশফিককে সঙ্গ দিতে মাঠে নেমে প্রথমেই লঙ্কান বোলার সুরঙ্গা লাকমলের গতির সামনে পড়েন তামিম। ভাঙা হাতে লাগলে ইনজুরি ভয়ঙ্কর হতে পারে, তাই বাঁ হাতটা শরীরের আড়ালে লুকিয়ে রাখেন। ডান হাত দিয়ে দারুণভাবে ঠেকিয়ে দেন বল। অবশেষে, লঙ্কানদের বিপক্ষে ১৩৭ রানের জয় তুলে নেয় টাইগাররা।

এরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুরু হয় তামিম বন্দনা। ফেসবুকে স্ট্যাটাস, মন্তব্যে, ছবিতে উঠেছে ‘তামিম ঝড়।’ অনেকেই আবার নিজের প্রফাইল ছবিও পরিবর্তন করে তামিমের ছবি দিয়েছেন। অনেকে আবার ফেসবুক প্রোফাইলের কাভার ফটোতে তামিমের ছবি দিয়েছেন।

পাশাপাশি বিভিন্ন স্ট্যাটাস ও মন্তব্যে তামিমকে নিয়ে চলছে শুভেচ্ছা বার্তা-শুভ কামনা। অনেকেই লিখেছেন, ‘তামিমের এক হাতই প্রতিপক্ষকে সামলাতে যথেষ্ঠ’। আরেকজন আবার লিখেছেন, ‘আজীবন তামিমকে মনে রাখবে ক্রিকেট বিশ্ব।’