জাতীয়

উৎক্ষেপণের আগে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরীক্ষা সম্পন্ন

মহাকাশে উৎক্ষেপণের আগে দেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট’-এর যান্ত্রিক পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণকারী প্রতিষ্ঠান স্পেস এক্স। ফ্লোরিডার স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যায় অরল্যান্ডোতে কেনেডি স্পেস সেন্টারে এ পরীক্ষা চালানো হয়।

স্পেস এক্স এক টুইট বার্তায় বলেছে, উৎক্ষেপণের আগে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের স্ট্যাটিক ফায়ার টেস্ট সম্পন্ন হয়েছে। এটি কার্যকর আছে। তবে টেস্টের পূর্ণাঙ্গ ফলাফল পেতে সব ডেটা লসঅ্যাঞ্জেলসে পাঠানো হয়েছে। তথ্য পর্যালোচনা শেষে শিগগিরই উৎক্ষেপণের তারিখ নির্ধারণ করা হবে।’

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ শনিবার দুপুরে সমকালকে বলেন, মহাকশে উৎক্ষেপণের আগে স্যাটেলাইটে কোনো ত্রুটি আছে কিনা সে বিষয়ে জানতে কিছু পরীক্ষা করা হয়। এরকম একটি পরীক্ষার নাম স্ট্যাটিক ফায়ার টেস্ট। এ পরীক্ষা শেষে প্রতিবেদনের জন্য এখন অপেক্ষা করছে স্পেস এক্স। প্রতিবেদন আজ হাতে পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। প্রতিবেদন হাতে পেলেই উৎক্ষেপণের তারিখ ঘোষণা করা হবে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণকে সামনে রেখে সরকারের কোনো প্রতিনিধি দল যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নতুন করে উৎক্ষেপণের তারিখ ঘোষণা করার তিন দিনের মধ্যে সরকারের প্রতিনিধিদল সেখানে যাবে।

প্রসঙ্গত, এর আগে কয়েকবার বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের তারিখ পেছানো হয়। সর্বশেষ আগামী ৭ মে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের তারিখ নির্ধারিত ছিল।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নির্মাণ কাজ শেষ হয় ২০১৭ সালের অক্টোবরে। এর পর গত ডিসেম্বরে এর সার্বিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষ করে ওড়ার উপযোগী ঘোষণা করা হয়। এরই মধ্যে ১৬ ডিসেম্বর বৈরী আবহাওয়া এবং আরও কিছু যুক্তিযুক্ত বাস্তব পরিস্থিতি বিবেচনায় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের তারিখ পিছিয়ে যায়।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্ব স্যাটেলাইট ক্লাবের সদস্য হওয়ার গৌরব অর্জন করবে। এর ফলে দেশের সম্প্রচার খাতে বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয়সহ উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার সহজ হবে।

Leave a Reply