আন্তর্জাতিক

মার্কিন ঘাঁটির বিরুদ্ধে হাজারো মানুষের বিক্ষোভ জাপানে

জাপানের দক্ষিণাঞ্চলীয় দ্বীপ ওকিনাওয়ায় মার্কিন সামরিক ঘাঁটি স্থানান্তরের পরিকল্পনার প্রতিবাদে দেশটির ৭০ হাজার বিক্ষোভকারী অংশগ্রহণ করেন। এসময় বিক্ষোভকারীরা ‘হেনোকো নতুন ঘাঁটি, না’ ‘ওকিনাওয়াবাসীরা হাল ছাড়বে না’ লেখা প্লাকার্ড নিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশে হাজির হন।

শনিবার নাহা’র একটি পার্কে জড়ো হয়ে তারা বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

জানা যায়, মার্কিন ঘাঁটিটি ওকিনাওয়া’র রাজধানী নাহা’য় স্থানান্তরের পরিকল্পনা রয়েছে জাপান সরকারের। কিন্তু স্থানীয়রা এই ঘাঁটি স্থানান্তরের বিরোধী। স্থানীয়দের ইচ্ছা, ঘাঁটিটি পুরো ওকিনাওয়া দ্বীপ থেকেই সরিয়ে নেয়া হোক।

সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, সমবেত বিক্ষোভকারীরা সামরিক ঘাঁটি বিরোধী স্লোগানসহ ওকিনাওয়ার প্রয়াত গভর্নর তাকেশি ওনাগার স্মরণে নিরবতা পালন করে।

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, ঘাঁটিটি সেখানকার পরিবেশ বিপর্যয় ঘটাচ্ছে। বাস্তুসংস্থান প্রক্রিয়া ধ্বংস করে হুমকির মুখে ফেলছে সেখানকার লাখ লাখ প্রাণকে। সরকার তাই ঘাঁটিটিকে সেখানকার অপেক্ষাকৃত কম জনবহুল অঞ্চল হেনোকো সাগরে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এতে পরিবেশের বিপর্যয় ঠেকানো যাবে না।

পরিবেশবাদীরা বলছেন নতুন এই নির্মাণ উপকূলের কোরাল ও সামুদ্রিক স্তন্যপায়ী প্রাণী ডুজোনসকে বিপন্ন করে তুলবে।

শনিবারের বিক্ষোভে যোগ দেয়া অনেকেই ‘হেনোকো নতুন ঘাঁটি, না’ ‘ওকিনাওয়াবাসীরা হাল ছাড়বে না’ লেখা প্লাকার্ড নিয়ে হাজির হয়। স্থানান্তর পরিকল্পনা বাতিলে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে উপস্থাপনের জন্য একটি প্রস্তাবে সম্মত হয় তারা।

কেন্দ্রীয় সরকার অবশ্য বলছে, জাপানে অবস্থানরত ৫৯ হাজার মার্কিন সেনার মধ্যে ২৫ হাজারই থাকেন ওকিনাওয়া দ্বীপে। এসব সেনাদের ঘাঁটির জন্য বর্তমান পরিকল্পনাটিই একমাত্র সমাধান। তবে বেশিরভাগ ওকিনাওয়াবাসী চান ওই সামরিক ঘাঁটিটি এখন এই দ্বীপ থেকেই সরিয়ে নেয়া হোক।