জাতীয়

জনগণকে ধোকা দিয়ে বোকা বানানোর সুযোগ নেই

বিএনপির নেতিবাচক রাজনীতির দিন শেষ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জনগণ কি আপনাদের চায়? নয় বছরে জনগণ আপনাদের ডাকে সাড়া দেয়নি, তারপরও বোঝেননি। দেশের জনগণকে ধোকা দিয়ে বোকা বানানোর সুযোগ নাই আর।

শনিবার রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

এসময় কাদের আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের সময় শেষ। কি করছেন আবার? রাতের অন্ধকারে কি গোপন বৈঠক করলেন? কাদের সঙ্গে পরামর্শ করলেন? সরকার কে বদলাবে? জনগণ। জনগণ কি আপনাদের চায়? নয় বছরে জনগণ আপনাদের ডাকে সাড়া দেয়নি, তারপরও বোঝেননি।

কাদের বলেন, সব আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছে। এখন দেখছি নালিশ আর নালিশ। আবার গোপন বৈঠক। আমরা জানি কোথায় কারা কারা বৈঠক করছেন। টেমস নদীর পাড়ে কখন কার সঙ্গে বৈঠক হচ্ছে। ব্যাংকক, দুবাইতে বসে কারা কোন গডফাদারের সঙ্গে বৈঠক করছেন। দেশেও রাতের অন্ধকারে বসে কোন বৈঠক হচ্ছে সব আমাদের নলেজে আছে। ধৈর্য ধরে আছি। মনিটর করছি আরও খোঁজ খবর নিচ্ছি। সময়মতো ব্যবস্থা নেব।

বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে কাদের বলেছেন, বিএনপিকে বলি এ লোকটাকে (স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদক) কেন বিশ্বাস করেন? সে আলতু-ফালতু কথা বলে। কেন বিশ্বাস করেন। কিভাবে বেগম জিয়াকে হাসপাতালে রেখে এরশাদ সাহেবের দলে যোগ দিয়েছিলেন। এটা ইতিহাস।

তিনি আরও বলেন, এদেশের রাজনীতির বহুরূপী ব্যারিস্টার। কথায় কথায় যিনি দল ও রঙ বদলাতেন। কখনো সাহেব কখনো বিবি, কখনো বিবি কখনো সাহেব। তার নাম হলো মওদুদ আহমেদ।

তিনি বলেন, মৃত ব্যক্তির নামে ভুয়া কাগজ করে যে লোক বাড়ি দখল করে তার রাজনীতি কি স্বচ্ছ? তিনি কি দেশ প্রেমিক? তিনি কি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেন?

স্বেচ্ছাসেবক লীগ কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছারের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ নাথ।