বিনোদন

ধার নিয়ে ফেঁসে গেছেন সুরভিন চাওলা

ভারতের চলচ্চিত্র তারকা সুরভিন চাওলার নামে থানায় প্রতারণার অভিযোগ করেছেন এক ব্যবসায়ী। পাঞ্জাবের হুঁশিয়ার এলাকার সত্যপাল গুপ্ত নামের এই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে তা পরিশোধ না করার অভিযোগ সুরভিনের বিরুদ্ধে। অভিযোগপত্রে সুরভিনের ভাই মানবিন্দর সিং আর এক বন্ধু অক্ষয় ঠাক্কারের নামও উঠে এসেছে।

হুঁশিয়ার থানায় সত্যপাল গুপ্ত অভিযোগে জানান, ২০১৪ সালে সুরভিন চাওলা, মানবিন্দর সিং ও অক্ষয় ঠাক্কার তাঁর কাছ থেকে এক কোটি রুপি ধার চান। ‘নীল বাট্টে সানাট্টা’ নামের একটি ছবি নির্মাণের জন্য সত্যপালের কাছ থেকে এই অর্থ নিয়েছিলেন তাঁরা। সত্যপালকে তাঁরা কথা দিয়েছিলেন, ছয় মাসের মধ্যে তাঁকে অর্ধেক অর্থ পরিশোধ করবেন। আর লাভসহ বাকি অর্থ ফেরত দেওয়া হবে ছবি মুক্তির পর। কিন্তু ২০১৬ সালে ছবি মুক্তির পর সুরভিন আর অন্য দুজন সত্যপালের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। সত্যপালের কোম্পানি থেকে সুরভিনকে একের পর এক ই-মেইল করা হলেও নায়িকা নিরুত্তর ছিলেন। নিজের অর্থ উদ্ধারে তাই থানায় লিখিত অভিযোগ জানান সত্যপাল।

সত্যপাল গুপ্তের দাবি, তিনি তাঁর ছেলের মাধ্যমে মানবিন্দর সঙ্গে পরিচিত হন। মানবিন্দর ও সুরভিন এক কোটি রুপি ধার চাইলেও সত্যপাল প্রথমে তাঁদের ৫১ লাখ রুপি দেন। এর মধ্যে সুরভিনকে সরাসরি ১১ লাখ রুপি দেওয়া হয়েছে। আর পুরো টাকা এই ব্যবসায়ী কয়েক ধাপে তাঁদের দিয়েছেন বলে দাবি করেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাঁকে কোনো অর্থ পরিশোধ করা হয়নি।

‘নীল বাট্টে সানাট্টা’ ছবিটি ব্যবসায়িকভাবে বেশ সফল হয়েছিল। ২০১৬ সালের ২২ এপ্রিল মুক্তির পর প্রথম সপ্তাহেই এই ছবি আয় করে তিন কোটি রুপি। টানা ছয় সপ্তাহ বক্স অফিসে ভালো ব্যবসা করে স্বরা ভাস্কর, রত্না পাঠক ও সঞ্জয় সুরি অভিনীত এই চলচ্চিত্র। সব মিলিয়ে এর আয় হয় সাত কোটি রুপি।