অর্থনীতিব্যবসা-বানিজ্য

১৪ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন ডিএসইতে

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্যসূচকের পতন হলেও ডিএসইতে ১৪ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন হয়েছে।

এদিন ডিএসইতে মোট ১ হাজার ১৪৬ কোটি ৩২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৯৭৩ কোটি ৯৪ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে আগের কার্যদিবসের তুলনায় সোমবার লেনদেন বেড়েছে ১৭২ কোটি ৩৮ লাখ টাকা।

এদিন ডিএসইতে শুধু লেনদেনের পরিমাণই আগের দিনের তুলনায় বেশি হয়নি, ২০১৭ সালের ২০ নভেম্বরের পর বা প্রায় ১৪ মাসের মধ্যে বাজারটিতে এটিই সর্বোচ্চ লেনদেন।

২০১৭ সালের ২০ নভেম্বর ডিএসইতে ১ হাজার ১৫৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকার লেনদেন হয়। এরপর গত ১৪ মাসে মাত্র ৯ বার হাজার কোটি টাকার ওপরে লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে চলতি মাসেই হাজার কোটি টাকার ওপরে লেনদেন হয়েছে চার কার্যদিবসে। তবে ২০১৭ সালের ২০ নভেম্বরের পর ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ আর সাড়ে ১১শ’ কোটি টাকা ছাড়ায়নি।

লেনদেনে বড় ধরনের উত্থান হলেও সোমবার দুই বাজারেই হাতবদল হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। এদিন ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১২২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ২০২টি প্রতিষ্ঠান। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২১টির দাম।

এদিকে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমায় ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ২৩ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৮৩৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ৩ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৩২৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ৪ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ২৫ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

টাকার অংকে সোমবার ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার। আজ কোম্পানিটির ৩৯ কোটি ৫৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা খুলনা পাওয়ারের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৩১ কোটি ৩২ লাখ টাকার। আর ৩০ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে বিবিএস কেবলস।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- সিঙ্গার বিডি, জেএমআই সিরিঞ্জ, ব্র্যাক ব্যাংক, শাশা ডেনিম, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন, অ্যাকটিভ ফাইন এবং ঢাকা ব্যাংক।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ৩৫ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৮০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এদিন বাজারটিতে মোট ২৭৫টি প্রতিষ্ঠানের ৩৬ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেন হওয়া শেয়ারের মধ্যে ৯৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৫৭টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির দাম।