সারাদেশ

লোহাগড়ায় গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় অঞ্জনা বেগম (৩০) নামে এ গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে শালনগর গ্রাম থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহতের ভাইয়ের দাবি, অঞ্জনা বেগমকে হত্যা করা হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ বছর আগে উপজেলার শালনগর গ্রামের আতাউর রহমান শিশিরের সঙ্গে উপজেলার লাহুড়িয়া ইউনিয়নের সরুশুনা গ্রামের শফিজ উদ্দিন ফকিরের মেয়ে অঞ্জনা বেগমের বিয়ে হয়। তাদের ঘরে আমিন নামে দুই বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। স্বামী শিশির সম্প্রতি তার খালাতে বোনের মেয়ের (ভাগ্নি) সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে দ্বিতীয় বিয়ে করে। এ নিয়ে পরিবারে অশান্তি চলে আসছে। দ্বিতীয় বিয়ের পর থেকে প্রথম স্ত্রী অঞ্জনার ওপর প্রায় নির্যাতন করতো শিশির।

অঞ্জনার ভাই জাহাঙ্গীর আলম অভিযোগ করে বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাতে অঞ্জনার স্বামী শিশির ফোনে জানায় অঞ্জনা খুব অসুস্থ। আপনারা সবাই দেখে যান। এ খবর পাওয়ার পর আমরা অঞ্জনার শ্বশুর বাড়ি গিয়ে অঞ্জনার মৃতদেহ দেখতে পাই। তখন ওই বাড়িতে অঞ্জনার স্বামী শিশিরসহ অন্য সদস্যরা ছিলো না। আমার বোনকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা ঘটনার সঠিক তদন্তসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি বিচার চাই।’

লোহাগড়া থানার সেকেন্ড অফিসার নূরুস সালাম সিদ্দিকী জানান, ‘খবর পাওয়ার পর ওই বাড়িতে গিয়ে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। মৃত্যুর সঠিক কারণ উদঘাটনের জন্য মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’