ক্রীড়াঙ্গন

ভারতীয় বোলিং সামলে হেডের লড়াই

তিন পেসারের আঁটসাঁট বোলিং। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের দুর্দান্ত স্কিলের প্রদর্শনী। ভারতীয় বোলারদের দারুণ বোলিংয়ে নাভিশ্বাস উঠে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানদের। চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞায় লড়াই করে গুমোট ড্রেসিং রুমে একটু স্বস্তির সুবাতাস বইয়ে দিতে পেরেছেন ট্রাভিস হেড।

লড়াকু ফিফটি করে হেড টিকে আছেন বলেই এখনও বেঁচে আছে অ্যাডিলেইড টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার লিড পাওয়ার আশা। প্রথম ইনিংসে ভারতের ২৫০ রানের জবাবে শুক্রবার দ্বিতীয় দিন শেষে অস্ট্রেলিয়ার রান ৭ উইকেটে ১৯১।

৮৮ ওভার খেলেও ভারতীয়দের দারুণ বোলিংয়ে অস্ট্রেলিয়া রান তুলতে পেরেছে ওভারপ্রতি দুই রানের একটু বেশি।

দিনের শুরুতে ভারত ব্যাটিংয়ে নেমেছিল ৯ উইকেটে ২৫০ রান নিয়ে। বাকি উইকেটটি নিতে অস্ট্রেলিয়ার লাগে একটি মোটে বল। দিনের প্রথম বলেই জশ হেইজেলউড ফিরিয়ে দেন মোহাম্মদ শামিকে।

অস্ট্রেলিয়া ব্যাটিংয়ে নামার পর ভারত ধাক্কা ফিরিয়ে দিতে সময় নেয়নি। ইনিংসের তৃতীয় বলেই ইশান্ত শর্মা এলোমেলো করে দেন অ্যারন ফিঞ্চের স্টাম্প।

দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে মার্কাস হ্যারিস ও উসমান খাওয়াজা যোগ করেন ৪৫ রান। অভিষিক্ত ওপেনার হ্যারিসকে ৪৫ রানে থামান অশ্বিন।

ভারতের পেস ও স্পিনের দারুণ আক্রমণের কোনো জবাবই তখন পাচ্ছিল না অস্ট্রেলিয়া। ইশান্ত ও শামি ব্যাটসম্যানদের জায়গাই দিচ্ছিলেন না একটুও। জাসপ্রিত বুমরাহ প্রথম স্পেলে ৫ ওভারে ২৪ রান দিলেও পরে ফিরে মেডেনে নেন টানা চারটি। আর ড্রিফট, টার্ন ও নিয়ন্ত্রণ মিলিয়ে অশ্বিন ছিলেন অনবদ্য।

লাঞ্চের সময় অস্ট্রেলিয়ার রান ছিল ২৭ ওভারে ২ উইকেটে ৫৭। লাঞ্চের পর প্রথম ওভারেই অশ্বিনের অনেক বাইরের বল স্টাম্পে টেনে আনেন শন মার্শ। অশ্বিনের বলে এই নিয়ে পাঁচবার আউট হলেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান, মুখোমুখি লড়াইয়ে গড় মাত্র ১.৬০!

অশ্বিনের পরের শিকার একপ্রান্ত আগলে রাখা উসমান খাওয়াজা। দারুণ এক ডেলিভারিতে এই অফ স্পিনার ফিরিয়ে দেন ১২৫ বলে ২৮ রান করা খাওয়াজাকে। অস্ট্রেলিয়ার রান তখন ৪ উইকেটে ৮৭।

সেখান থেকে প্রতিরোধের শুরু পিটার হ্যান্ডসকম ও হেডের জুটিতে। দলে ফেরা হ্যান্ডসকম নিজস্ব ভিন্ন ঘরানার টেকনিকে খেলছিলেন ভালোই। হেড ছিলেন ধৈর্যের প্রতিমূর্তি। কিন্তু হ্যান্ডসকমের সম্ভাবনায় ইনিংস শেষ বাজে শটে। ৩৪ রানে উইকেট দিয়ে আসেন বুমরাহকে। টিকতে পারেননি অধিনায়ক টিম পেইনও।

ইনিংসের প্রথম ফিফটি জুটি আসে সপ্তম উইকেটে। প্যাট কামিন্স মাত্র ১০ রান করলেও দারুণ সঙ্গ দেন হেডকে। কামিন্সকে ফিরিয়ে বুমরাহ ভেঙেছেন এই জুটিও।

তবে ফাটল ধরানো যায়নি হেডের প্রতিরোধের দেয়ালে। মিচেল স্টার্ককে সঙ্গে নিয়ে শেষ করেছেন দিন। ১৪৯ বল খেলে দিনশেষে অপরাজিত তিনি ৬১ রানে। লিড পেতে অস্ট্রেলিয়ার চাই আর ৬০ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত ১ম ইনিংস: ২৫০

অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: ৮৮ ওভারে ১৯১/৭ (ফিঞ্চ ০, হারিস ২৬, খাওয়াজা ২৮, মার্শ ২, হ্যান্ডসকম ৩৪, হেড ৬১*, পেইন ৫, কামিন্স ১০, স্টার্ক ৮*; ইশান্ত ২/৩১, বুমরাহ ২/৩৪, শামি ০/৫১, অশ্বিন ৩/৫০, বিজয় ০/১০)।