সারাদেশ

শরণখোলায় চেতনানাশক খাইয়ে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট

শরণখোলায় চেতনানাশক খাইয়ে জেএসসি পরীক্ষার্থীসহ তিন জনকে অচেতন করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার গভীর রাতে উপজেলার দক্ষিণ বাধাল গ্রামে কবির হাওলাদারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

শনিবার সকালে অসুস্থ গৃহবধূ শিল্পী আক্তার (৩৫), তার মেয়ে তাসনিম (১১) ও ছেলে জেএসসি পরীক্ষার্থী জাবেদকে (১৪) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। জাবেদকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে পরীক্ষায় অশংগ্রহণের জন্য আমড়াগাছিয়া কেন্দ্রে পাঠানো হয়।

শিল্পী আক্তারের বড় জা নাজমুন নাহার জানান, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে তারা খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। শনিবার সকালে প্রতিবেশী স্বজনরা সাড়াশব্দ না পেয়ে ঘরের দরজা খোলা দেখে তাদের সবাইকে অচেতন অবস্থায় পরে থাকতে দেখে। পরে তাদের উদ্ধার করে শরণখোলা উপজেলা হাসপাতলে নিয়ে যাওয়া হয়। দুর্বৃত্তরা অচেতন শিল্পী আক্তারের পরিধেয় কান ও গলার স্বর্ণালংকারসহ ঘরের আলমারি ভেঙে স্বর্ণালঙ্কার, নগদ টাকা ও অন্যান্য মালামাল নিয়ে গেছে। গৃহকর্তা কবির হাওলাদার ঢাকায় একটি গার্মেন্টে কর্মরত বলে নাজমুন্নাহার জানান।

হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক বিশ্বজিৎ জানান, চেতনানাশক মিশ্রিত খাবার খেয়ে তারা অসুস্থ হলেও এখন আশঙ্কামুক্ত।

শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দিলীপ কুমার সরকার জানান, ঘটনাটি তাকে এখনো কেউ জানায়নি। এ ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত ৫ নভেম্বর রাতে একইভাবে বকুলতলা গ্রামের প্রবাসী নুরুল ইসলাম হাওলাদারের বাড়িতে চেতনা নাশক প্রয়োগ করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটে নেয় দুর্বৃত্তরা।